default-image

আর কোনো কথা থাকে না

আশরাফুন নাহার লিউজা

ভালোবাসার আকস্মিক মৃত্যুর পরে

আর কোনো কথা থাকে না।

নিয়ন্ত্রিত আবেগের সীমানা পেরিয়ে

কণ্ঠস্বর চিড়ে কয়েকটা শব্দ বেড়িয়ে আসে হয়তো

কিন্তু বাক্যে পরিণত হতে পারে না খণ্ড–বিখণ্ড অনুভূতি,

মন আর মননের আবর্তনে ঘুরতে থাকে হ য ব র ল!

অনেকবার ইচ্ছে করে ভীষণ ইচ্ছে করে,

আলতো করে বলি ‘কেমন আছ তুমি’?

বলা হয় না; শোনা হয় না, দেখা হওয়া তো প্রশ্নাতীত।

তবে ঈশ্বরের কাছে প্রশ্ন করি রোজ;

কেন আমাকে নির্বোধ করে রেখেছিলে হে ঈশ্বর?

মিথ্যা বন্ধনের নিয়ন আলোয় কেটেছে কত সন্ধ্যা,

টুকরো কাচের মতো ভেঙে যাওয়া বিশ্বাস আর

বিষাক্ত তীরের আঘাতেও কেন বুঝতে পারিনি

সূর্যের প্রখর তাপের মতো কঠোর কঠিন বাস্তবতা!

আমার বোধোদয় হয়েছে ঠিকই

তবে ভালোবাসার আকস্মিক ও নির্মম মৃত্যুর পরে,

যখন আর কোনো কথা থাকে না

থাকে শুধু শূন্য চোখের করুণ দৃষ্টি

আর চেপে রাখা অসংখ্য দীর্ঘশ্বাস।

জানি তুমি আজও বুঝবে না

ভালোবাসার দাফনের পরে

কোথাও কিছু বলার থাকে না।

বিজ্ঞাপন

স্বাধীনতা

কবিতা হোসাইন

ক্লাস শেষে রোকেয়া হলের গেটে

দেখা হলো আমাদের,

তোমার হাতটা ধরতেই—

মনে হলো টগবগে রক্তের স্ফুলিঙ্গ

বয়ে যাচ্ছে তোমার ধমনিতে।

এমন রক্তজবা চোখ আর থমথমে

মুখ তোমার,

দেখিনি এর আগে কখনো।

সেদিন রেসকোর্স ময়দানে

কী বলেছিলেন বঙ্গবন্ধু?

জানালে না আমায়!

বোবা চোখে চোখ রেখে আমার,

তুমি বলেছিলে—

আজ যদি প্রেম দাও,

কাল তার মূল্য দেব।

আজ যদি ভালোবাসো

কাল তোমায় ভালো লাগা দেব,

দেব সুন্দর সকাল।

আজ যদি অপেক্ষা করো,

কাল তোমায় শোষণমুক্ত স্বদেশ দেব।

আজ যদি বুঝতে শেখো আমায়,

কাল তোমায় বোঝাব স্বদেশ গড়ার অনেক কিছু।

আমি তো বুঝিনি তোমার কথার

গভীরতা কিছু,

বুঝিনি এ ছিল তোমার অঙ্গীকার

আজ চলে গিয়ে আমায় জানালে কী

তোমার অভিমান?

প্রাণ দিয়ে তাই বোঝালে কী তুমি,

বলতে চেয়েছিলে একটি কথা

স্বাধীনতা।

অপরাজিত

মূল: উইলিয়াম আর্নেস্ট হেনলি

অনুবাদ: তানভীর ইসলাম

ভূমিকা

ব্রিটিশ কবি ও লেখক উইলিয়াম আর্নেস্ট হেনলির বিখ্যাত কবিতা ‘ইনভিকটাস’, ল্যাটিন ভাষায় যার অর্থ অপরাজিত। মাত্র ১৬ বছর বয়সে যক্ষ্মায় আক্রান্ত হয়ে তিনি বাম পা হারান। পরবর্তীতে নানা জটিলতায় অপর পা-ও হারাতে বসেছিলেন। সেই পায়ে অস্ত্রোপচারের পর সেরে ওঠার সময় ১৮৭৫ সালে তিনি লেখেন এই কবিতা। যুগ যুগ ধরে এ কবিতা দুঃসময়ে মানুষকে অনুপ্রেরণা জুগিয়েছে যার মধ্যে বর্ণবাদবিরোধী দক্ষিণ আফ্রিকার কিংবদন্তি নেতা নেলসন ম্যান্ডেলা অন্যতম। ম্যান্ডেলা তাঁর দীর্ঘ ২৭ বছরের কারাবন্দী জীবনে যখন রোবেন দ্বীপে নির্বাসিত ছিলেন, তখন অন্য বন্দীদের কাছে নিয়মিত এ কবিতা আবৃত্তি করে সাহস জোগাতেন। সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ২০১৩ সালে ম্যান্ডেলার স্মরণসভায় এই কবিতার শেষ ছত্র পাঠ করে এই অবিসংবাদিত নেতাকে বিদায় জানিয়েছিলেন।

যখন রাত ঢেকে ফেলে আমায়,

মেরু অবধি কৃষ্ণ গহ্বরের মতো,

ঈশ্বর যিনি হোক তাকে ধন্যবাদ

আত্মা এখনো নয় পরাজিত।

পরিস্থিতি যখন বিরূপ তখনো

ককিয়ে উঠিনি বা নই ক্রন্দনরত।

অদৃষ্টের আঘাতে রক্তাক্ত হয়েছে

শির, কিন্তু হয়নি নত।

ক্রোধ ও কান্নার এই স্থান ছাড়িয়ে

ভীতির ছায়া যখন ঘনায়,

তবুও ধ্বংসময় বছরগুলো

খুঁজে পায় অকুতোভয় আমায়।

দ্বার কত সংকীর্ণ কী যায় আসে,

কত শাস্তি আসে অগুনতি,

আমিই আমার নিয়তির প্রভু,

আমিই আত্মার সেনাপতি।

বিজ্ঞাপন
সাহিত্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন