বিজ্ঞাপন

আগামী মাসে ৬০ বছরে পা রাখদে যাওয়া এই হলিউড অভিনেতা ১০ সন্তানের পরিবারকে সবচেয়ে অগ্রাধিকার দিয়েছেন। বছরে তিনটি সিনেমা করার চেয়ে এখন সন্তানদের বেশি সময় দিতে চাচ্ছেন তিনি।

মারফি বলেন, ক্যারিয়ারের চেয়ে পরিবার এখন তার কাছে বেশি অগ্রাধিকার পাচ্ছে। তিনি বলেন, ‘আমি এই সন্তানদের পেয়েছি। আপনি যখন বুঝতে পারবেন, বাচ্চাদের জন্য উত্তম কাজটি কী, তখন তাদের অগ্রাধিকার দেওয়া কখনো খারাপ সিদ্ধান্ত হবে না।’

১৯৮৯ সালে মারফির তৎকালীন বান্ধবী পাওলেট ম্যাকনেলির গর্ভে প্রথম পুত্রসন্তান এরিকের জন্ম হয়। তার এক বছর পর ট্যামারা হুডের গর্ভে আসে তাঁর দ্বিতীয় সন্তান খ্রিষ্টান। ১৯৯৩ সালে তিনি নিকোল মিশেলকে বিয়ে করেন এবং তাদের ঘরে ব্রিয়া, মাইলস, শায়েন, যোলা ও বেলার জন্ম হয়।

২০১৬ সালে নিকোলের সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদে ঘটে। অল্প সময়ের মধ্যেই এই অভিনেতা শিরোনামে চলে আসেন, যখন তাঁর সাবেক স্পাইস গার্ল মেল বি দাবি করেন, ২০০৭ সালের এপ্রিলে জন্ম নেওয়া তার মেয়ে অ্যাঞ্জেলের বাবা মারফি। পিতৃতান্ত্রিক পরীক্ষার পরে ঘটনাটি প্রমাণিত হয়। তখন থেকেই সন্তান হিসেবে অ্যাঞ্জেলকে স্বাগত জানান মারফি।

২০১৬ সালে মারফির দীর্ঘকালীন সঙ্গী পাইগে বাচারের গর্ভে ২০১৬ একটি কন্যা সন্তানের জন্ম হয়। ২০১৮ সালে জন্ম হয় আরেকটি পুত্র সন্তানের।

১০ সন্তানের গর্বিত জনক মারফি তাঁর সন্তানদের মেধাবী এবং আশীর্বাদ মনে করেন। তিনি বলেন, ‘আমার বাচ্চারা লিউডের জার্ক কিড নয়। তাদের মধ্যে কোনো খারাপ বীজ নেই। তাদের পেয়ে আমি ধন্য। আমি সত্যিই ভাগ্যবান।’

এডওয়ার্ড রিগ্যান মারফি একজন হলিউড অভিনেতা। কৌতুক অভিনেতা হিসেবে তাঁর রয়েছে সুখ্যাতি। এর বাইরে একাধারে তিনি লেখক, প্রযোজক ও গায়ক। স্কেচ কমেডি শো ‘স্যাটারডে নাইট লাইভ’–এ তিনি বেশ খ্যাতি অর্জন করেন। এ কারণে তিনি ১৯৮০ থেকে ১৯৮৪ সাল পর্যন্ত নিয়মিত অভিনয়ে ব্যস্ত ছিলেন। ১০০ সেরা কৌতুক অভিনেতার তালিকায় মারফি ১০ নম্বরে রয়েছেন।

উত্তর আমেরিকা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন