default-image

যুক্তরাষ্ট্রে করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যুতে অন্যতম ক্ষতিগ্রস্ত অঙ্গরাজ্য নিউইয়র্ক। এই অঙ্গরাজ্যে ইতিমধ্যে ১০ লাখের বেশি মানুষকে করোনার টিকা দেওয়া হয়েছে।

গতকাল মঙ্গলবার অঙ্গরাজ্যের গভর্নর অ্যান্ড্রু কুমো এই তথ্য জানিয়েছেন।

গভর্নর কুমো বলেন, অবিশ্বাস্য দ্রুততার সঙ্গে টিকাদান করা হচ্ছে। তবে সরবরাহ অপ্রতুল থাকায় টিকা নিয়ে একধরনের সংকট চলছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

গভর্নর কুমো বলেন, ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানিকে আরও দ্রুততার সঙ্গে টিকার সরবরাহ নিশ্চিত করতে হবে।

নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যে প্রায় সোয়া দুই লাখ লোক তাঁদের টিকার দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করে ফেলেছেন। আর সাত লাখের বেশি ব্যক্তি প্রথম ডোজ নিয়েছেন।

গতকাল পাওয়া তথ্য অনুয়ায়ী, নিউইয়র্কে করোনার সংক্রমণের হার কমে আসছে।

গত বছরের মার্চ মাস থেকে যুক্তরাষ্ট্রে করোনার ব্যাপক সংক্রমণ শুরু হয়। সংক্রমণের প্রথম ধাক্কায় সবচেয়ে বেশি মানুষের মৃত্যু হয় নিউইয়র্কে।

বিজ্ঞাপন

যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় এখন পর্যন্ত ২ কোটি ৭৮ লাখ মানুষ সংক্রমিত হয়েছেন। মারা গেছেন ৪ লাখ ৮০ হাজার মানুষ। চলতি মাসের মধ্যে মৃত্যুর এই সংখ্যা ৫ লাখ ছাড়িয়ে যাবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

করোনায় নিউইয়র্কে মারা গেছে প্রায় ৪৫ হাজার মানুষ।

অবশ্য সংক্রমণের পরবর্তী ধাক্কায় এখন যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম বৃহত্তম অঙ্গরাজ্য ক্যালিফোর্নিয়ার অবস্থা নাজুক হয়ে পড়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের সর্বত্র টিকাদান শুরু করা হলেও এখনো তার সরবরাহ অপ্রতুল। ফলে লোকজন নিজের নাম তালিকাভুক্ত করেও টিকা গ্রহণের জন্য ডাক পাচ্ছেন না।

প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন তাঁর প্রশাসনের অগ্রাধিকার হিসেবে করোনা নিয়ন্ত্রণের কথা বলেছেন। তিনি নির্বাহী আদেশের মাধ্যমে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রে ব্যাপকভাবে টিকাদান নিশ্চিত করা গেলে গ্রীষ্মের পর থেকে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার আশা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

উত্তর আমেরিকা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন